চড়া মূল্য দিতে হতে পারে এই অসাবধানতার…

27

পরশু জিম্বাবুয়ে ইনিংসের ৪৮তম ওভারের শেষ দিকের ঘটনা। পূর্ব গ্যালারির বেষ্টনী টপকে হঠাৎ মাঠে ঢুকে পড়ল এক কিশোর। সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া ওই কিশোরকে নিজের দিকে ছুটে আসতে দেখে প্রথমে অনেকটা ভয়ই পেয়েছিলেন মুশফিকুর রহিম। পরে বুঝতে পেরে ওই কিশোরকে কাছে টেনে নেন মুশফিক।

আজও দেখা গেল ঠিক একই রকম ঘটনা। দ্বিতীয় সেশনে পিটার মুরকে ফিরিয়ে বাংলাদেশ দল উদযাপন করতে ব্যস্ত। এই সময় জিম্বাবুয়ের ডাগআউটের পাশ দিয়ে হুট করে এক দর্শক মাঠে ঢুকেই ভোঁ-দৌড়। এই দর্শকও দৌড়ে গিয়ে জড়িয়ে ধরে মুশফিকুর রহিমকে। এটা হয়তো নিষ্কলুষ আবেগের প্রকাশ। কিন্তু ঝুঁকিও নয় কী?

আইসিসির কাছে নিরাপত্তার লঙ্ঘন বলে বিবোচিত হতে পারে ঘটনাগুলো। যাতে ভেন্যু নিষেধাজ্ঞার মতো ঘটনা ঘটতে পারে। যার প্রভাব পড়তে পারে বাংলাদেশ ক্রিকেটের ওপর। তাহলে হুট করে মাঠে ঢুকে পড়ার আগে একবার ভাবা উচিত নয় কী আপনার?

sylhet test musfiq1

বিসিবির উচিত বিষয়গুলোকে আরও গুরুত্ব দেওয়ার। এই ঘটনার পর বিসিবির প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা মেজর (অব.) হোসেন ইমাম জানান, সিলেট টেস্টে মাত্র ২০ জন নিরাপত্তাকর্মী দায়িত্ব পালন করছেন। এই সংখ্যাটা যথেষ্ট কী? হোসেন ইমাম বলেন, ‘এখানে বিসিবির নিরাপত্তাকর্মী আছে ২০ জন। তারা মূলত সার্বিক পর্যবেক্ষণের দায়িত্বে আছেন। গ্যালারির নিরাপত্তা বা মাঠে কেউ ঢুকে পড়ল কি না, এসব দেখার দায়িত্ব আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের। দায়িত্ব পালনে তাঁদের আরও সচেতন হওয়া প্রয়োজন।’

নিরাপত্তাকর্মীদের অবশ্যই আরও সচেতন হওয়া প্রয়োজন। সেই সাথে সকলেরই সচেতন হওয়া প্রয়োজন। একটু খামখেয়ালিপনার কারণে দেশের ক্রিকেটের ক্ষতি হোক এটা অবশ্যই কেউ চাইবেন না!

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

WP Twitter Auto Publish Powered By : XYZScripts.com