বিখ্যাত ৫ ক্রিকেটারের সঙ্গে যেভাবে পরিচয় হয়েছিল তাদের জীবন সঙ্গিনীর

59

ভারতীয় বিখ্যাত ৫ ক্রিকেটারের সাথে তাদের জীবন সঙ্গিনীর কিভাবে পরিচয় হয়েছিলো তা জেনে নিন এবার।

 

  • রোহিত শর্মা : স্ত্রী ঋতিকার সঙ্গে রোহিতের প্রেম কাহিনি চলচ্চিত্রের যে কোনো গল্পকে হার মানিয়ে দেবে। ঋতিকা নিজে ছিলেন একজন স্পোর্টস ইভেন্ট ম্যানেজার। আর এটাই ছিল রোহিত-ঋতিকার কাছাকাছি আসার প্রথম সেতু। রোহিতের ম্যানেজারও ছিলেন তিনিই।

    রোহিত শর্মা : স্ত্রী ঋতিকার সঙ্গে রোহিতের প্রেম কাহিনি চলচ্চিত্রের যে কোনো গল্পকে হার মানিয়ে দেবে। ঋতিকা নিজে ছিলেন একজন স্পোর্টস ইভেন্ট ম্যানেজার। আর এটাই ছিল রোহিত-ঋতিকার কাছাকাছি আসার প্রথম সেতু। রোহিতের ম্যানেজারও ছিলেন তিনিই।

  • শিখর ধাওয়ান : তার সঙ্গে আয়েশার আলাপ কিন্তু ফেসবুকের মাধ্যমে। হরভজন সিং ছিলেন আয়েশা এবং শিখর দু’জনেরই ফেসবুকের কমন ফ্রেন্ড। আর সেই সূত্রেই শিখর-আয়েশার আলাপ। আলাপ ঘনিষ্ঠতায় পৌঁছতে সময় নেয়নি।

    শিখর ধাওয়ান : তার সঙ্গে আয়েশার আলাপ কিন্তু ফেসবুকের মাধ্যমে। হরভজন সিং ছিলেন আয়েশা এবং শিখর দু’জনেরই ফেসবুকের কমন ফ্রেন্ড। আর সেই সূত্রেই শিখর-আয়েশার আলাপ। আলাপ ঘনিষ্ঠতায় পৌঁছতে সময় নেয়নি।

  • বিরাট কোহলি : বিরাট-অনুশকা প্রেম কাহিনি তো খুবই আলোচিত। নিজেদের জগতে দু’জনেই অত্যন্ত সফল। একটা শ্যাম্পুর বিজ্ঞাপনে তাদের প্রথম আলাপ। তারপর বন্ধুত্ব। আস্তে আস্তে প্রেম ও বিয়ে।

    বিরাট কোহলি : বিরাট-অনুশকা প্রেম কাহিনি তো খুবই আলোচিত। নিজেদের জগতে দু’জনেই অত্যন্ত সফল। একটা শ্যাম্পুর বিজ্ঞাপনে তাদের প্রথম আলাপ। তারপর বন্ধুত্ব। আস্তে আস্তে প্রেম ও বিয়ে।

  • এমএস ধোনি : আলাপ ছিল ছোট থেকেই। রাঁচিতে সাক্ষীর সঙ্গে ছোটবেলায় একই স্কুলে পড়তেন ধোনি। সাক্ষীদের পরিবার রাঁচি থেকে দেহরাদূনে চলে গেলে প্রায় এক দশক তাদের মধ্যে কোনো যোগাযোগ ছিল না। ২০০৭ কলকাতার তাজ বেঙ্গলে উঠেছিল ভারতীয় দল। সেখানে ইনর্টান করছিলেন সাক্ষী। সেই সাক্ষাৎই আবার মিলিয়ে দিল তাদের।

    এমএস ধোনি : আলাপ ছিল ছোট থেকেই। রাঁচিতে সাক্ষীর সঙ্গে ছোটবেলায় একই স্কুলে পড়তেন ধোনি। সাক্ষীদের পরিবার রাঁচি থেকে দেহরাদূনে চলে গেলে প্রায় এক দশক তাদের মধ্যে কোনো যোগাযোগ ছিল না। ২০০৭ কলকাতার তাজ বেঙ্গলে উঠেছিল ভারতীয় দল। সেখানে ইনর্টান করছিলেন সাক্ষী। সেই সাক্ষাৎই আবার মিলিয়ে দিল তাদের।

  • শচীন টেন্ডুলকার : বাদ রাখা যাবে না শচীন-অঞ্জলির প্রেম কাহিনিকেও। দু’জনের প্রথম দেখা হয়েছিল বিমানবন্দরে। তখন কেউ কাউকে চিনতেন না। তারপর এক কমন বন্ধুর বাড়িতে দেখা। তখন অঞ্জলি ডাক্তারি পড়ছেন। সেই আলাপই আস্তে আস্তে প্রেমে পরিণত হয়।

    শচীন টেন্ডুলকার : বাদ রাখা যাবে না শচীন-অঞ্জলির প্রেম কাহিনিকেও। দু’জনের প্রথম দেখা হয়েছিল বিমানবন্দরে। তখন কেউ কাউকে চিনতেন না। তারপর এক কমন বন্ধুর বাড়িতে দেখা। তখন অঞ্জলি ডাক্তারি পড়ছেন। সেই আলাপই আস্তে আস্তে প্রেমে পরিণত হয়।

 

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

WP Twitter Auto Publish Powered By : XYZScripts.com